জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্পের অগ্রগতির মতবিনিময় সভা

সভায় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান ও সচিব পবন চৌধুরী ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠি ডটকম

জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্পের (ইকোনমিক জোন) অবকাঠামো ও পরিসেবা সংযোগসহ সামগ্রিক কাজের অগ্রগতি বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা ২১ নভেম্বর দুপুরে জামালপুর সার্টিক হাউজে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসন এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভার প্রধান অতিথি বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান ও সচিব পবন চৌধুরী সভায় উপস্থিত জামালপুরের গণপূর্ত অধিদপ্তর, পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, পানি উন্নয়ন বোর্ড, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, টিএন্ডটি, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন ডিস্ট্রিবিউশন এন্ড ট্রান্সমিশন কম্পনি লি., জেলা প্রশাসনের রাজস্ব বিভাগসহ প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দের কাছ থেকে জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্পের কাজের সার্বিক অগ্রগতি সম্পর্কে অবহিত হন।

আলোচনায় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, বেশি বেশি ট্যাক্স আদায় হলেই দেশের সবকিছুই ঠিকঠাক চলবে। আর এর জন্য দরকার বিনিয়োগ আর বিনিয়োগ। বিনিয়োগ ছাড়া ট্যাক্স আদায় বাড়ানো যায় না। সবাইকে একটা কথা মনে রাখতে হবে যে ক্ষমতা মানেই কোনো ইগো নয়, ক্ষমতা মানেই আগামীদিনের বাংলাদেশের চিন্তা করেই ত্যাগের মধ্য দিয়ে বড় কোনো অর্জনে যাওয়া।

তিনি বলেন, জামালপুরের এই অর্থনৈতিক অঞ্চলটি করতে পারলে এ অঞ্চলের বেকার ছেলেমেয়েদের চাকরির সুযোগ সৃষ্টি হবে। সড়ক যোগাযোগ থেকে শুরু করে ব্যবসা-বাণিজ্যে সব ক্ষেত্রে একটা অর্থনৈতিক অগ্রগতির পরিবেশ তৈরি হবে। পিছিয়ে থাকা জামালপুরের সার্বিক উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় বিশেষ প্রভাব রাখবে। তিনি এ অর্থনৈতিক অঞ্চলের আশপাশের সাধারণ মানুষের জমি অধিগ্রহণ ও পরিবেশ সুরক্ষা থেকে শুরু করে সব ধরনের কাজে যাতে কোনো প্রকার অনিয়ম বা গাফিলতি না হয় সেই দিক খেয়াল রেখে ভালো কিছুর জন্য ত্যাগ স্বীকার করে প্রকল্পের কাজকে দ্রুতগতিতে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।

নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী এর আগে ২১ নভেম্বর সকালে জামালপুর সদরের দিগপাইত ও তিতপল্লা ইউনিয়নে জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের সচিব আব্দুস সবুর মন্ডল, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের উপসচিব ও জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক হেলাল আহমেদ, জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) লোকমান হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফরিদা ইয়াছমিন ও সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলামসহ প্রকল্প সংশ্লিষ্ট জামালপুরের সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের উর্ধতন কর্মকর্তা ও প্রকৌশলীবৃন্দ তার সাথে ছিলেন।

প্রসঙ্গত, জামালপুর সদর উপজেলার দিগপাইত ও তিতপল্লা ইউনিয়নের বিভিন্ন মৌজা থেকে অধিগ্রহণ করা ৪৩৬ দশমিক ৯২ একর জমিতে জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। এর মধ্যে সরকারি খাস জমি রয়েছে ৯২ দশমিক ৯৫ একর। বাকি ৩৪৩ দশমিক ৯৭ একর জমি স্থানীয় জমির মালিকদের কাছ থেকে অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এ প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৩৩ কোটি ১৪ লাখ টাকা। এর মধ্যে জমি অধিগ্রহণে ব্যয় হয়েছে ১২১ কোটি টাকা। বর্তমানে প্রকল্প এলাকায় মাটি ভরাটের কাজসহ অন্যান্য প্রাথমিক কাজ চলমান রয়েছে। এ প্রকল্পের কাজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২০ সালের জুন মাস পর্যন্ত।

sarkar furniture Ad
Green House Ad