জামালপুরে ফেসবুকে অশ্লীলতা ছড়ানোর অভিযোগে এক যুবক গ্রেপ্তার

ফেসবুকে অশ্লীলতা ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার জহুরুল। ছবি : বাংলার চিঠি ডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর ॥
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি নকল (ফেক) আইডি খুলে অশ্লীল কথাবার্তা ও ছবি পোস্ট করার অভিযোগে জামালপুর শহরের বানিয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে জহুরুল ইসলাম জনি (২১) নামের মুঠোফোন সার্ভিসিংয়ের এক মিস্ত্রিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। তিনি স্থানীয় আব্দুল মালেকের ছেলে। ২১ সেপ্টেম্বর বিকেলে র‌্যাবের জামালপুর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুর রহমানের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুকে ‘মেহেদি হাসান সজিব’ নামে একটি নকল আইডি খুলে তাতে মানহানিকর ও অশ্লীল কথাবার্তাসহ ছবি পোস্ট সম্পর্কিত একটি অভিযোগ পায় র‌্যাব। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল ২১ সেপ্টেম্বর বিকেল চারটার দিকে জামালপুর শহরের বানিয়া বাজার এলাকার ফজলুল হকের বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় স্থানীয় আব্দুল মালেকের ছেলে মুঠোফোন সার্ভিসিংয়ের মিস্ত্রি জহুরুলকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়ার পর র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে অন্যের ক্ষতি করার উদ্দেশে ফেসবুকে নকল আইডি খোলার কথা স্বীকার করেছেন জহুরুল। তিনি কিভাবে কাজটি করেছেন র‌্যাবের কাছে তারও বর্ণনা দিয়েছেন। জামালপুর সদর উপজেলার শরিফপুর ইউনিয়নের রামপুর নয়াপাড়া গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে মেহেদী হাসান সজীবের পারিবারিক শত্রুতা রয়েছে জহুরুলের। মেহেদীর নিকটাত্মীয় একজন নারী বানিয়া বাজারে জহুরুলের কাছে যান মুঠোফোন সেট মেরামত করতে। জহুরুল কৌশলে দু’দিন সময় লাগবে বলে ফোনসেট রেখে যেতে বললে ওই নারী ফোনসেট তার কাছে রেখে চলে যান। পরে জহুরুল ওই ফোনের সিমের নম্বর দিয়ে ফেসবুকে ‘মেহেদী হাসান সজিব’ নামে নকল আইডি খুলেন। এরপর মেহেদী হাসানের প্রকৃত ফেসবুক আইডি থেকে ছবি সংগ্রহ করে সেই ছবি নকল আইডিতে পোস্ট করেন। একই সাথে জহুরুল ওই নকল আইডি থেকে মেহেদী হাসানের স্ত্রীর নামে অশ্লীল কথাবার্তা ও ছবি পোস্ট করেন।

এ নিয়ে মেহেদী হাসান সজীব সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হন। এক পর্যায়ে তিনি এ ব্যাপারে ২৪ আগস্ট জামালপুর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ওই সাধারণ ডায়েরির সূত্র ধরে র‌্যাব ২১ সেপ্টেম্বর বিকেলে অভিযান চালিয়ে বানিয়া বাজার এলাকা থেকে জহুরুলকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এ ব্যাপারে মেহেদী হাসান সজিব বাদী হয়ে তাকে এবং তার স্ত্রীকে মানহানির অভিযোগে জহুরুলকে আসামি করে জামালপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

sarkar furniture Ad
Green House Ad